গণস্বাস্থ্য-আরএনএ বায়োটিক লিমিটেড এর উদ্ভাবিত এন্টিবডি কিটের ব্যাপারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ)-এর কারিগরি কমিটি যে সুপারিশ করেছে তার বাস্তবায়ন চান গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। শুক্রবার (১৯ জুন) রাতে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে দেওয়া ‘জিআর কোভিড-১৯ ডট ব্লট’ কিট প্রকল্পের সমন্বয়ক ডা. মুহিব উল্লাহ খোন্দকার স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী এ বাস্তবায়ন চান।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং গণস্বাস্থ্যের নামকরণ এবং স্থাপনে বঙ্গবন্ধুর ভূমিকার বিষয় উল্লেখ করে ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, ‘আবার বঙ্গবন্ধুর নামে প্রতিষ্ঠিত বিএসএমএমইউর কারিগরি বিশেষজ্ঞ দল গণস্বাস্থ্যের উদ্ভাবিত কিটের কার্যকারিতার প্রমাণ পেয়েছেন। বিএসএমএমইউর কারিগরি কমিটি গণস্বাস্থ্য আরএনএ বায়োটেক লিমিটেড উদ্ভাবিত অ্যান্টিবডি কিটের সুপারিশের জন্য কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। আশা করি, ওষুধ প্রশাসন জরুরিভাবে সার্বিক করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় এনে সুপারিশগুলো বাস্তবায়ন করবেন এবং দ্রুত নিবন্ধন ও বিপণনের অনুমতি দেবেন।’ এই বর্ষীয়ান চিকিৎসক আরও বলেন, ‘কিটের উন্নয়ন একটি চলমান বিষয়। এবিষয়ে আমরা বিএসএমএমইউর ক্রমাগত সহায়তা চাইছি। তারা অ্যান্টিজেন কিটটি দ্রুত পরীক্ষা করে দিক। তবে বিএসএমএমইউ আনুষ্ঠানিকভাবে যা বলেছে, সেটাই হোক ভিত্তি। সতর্ক থাকতে হবে, লাল ফিতা যাতে ক্ষণকাল হরণ করতে না পারে