ডেস্ক রিপোর্ট : নারী পুরুষের শরীরের যেকোন অংশে অর্থাৎ চুল, দাঁড়ি বা ভ্রুঁতে এলোপেসিয়া বা টাক আক্রান্ত হয়। এলোপেসিয়াকে আমাদের দেশে গোলটাক বা টাক পোকার আক্রমণও বলা হয়। পুরুষের ক্ষেত্রে এটি অ্যান্ড্রোজেনিক অ্যালোপেসিয়া বা “পুরুষের টাক” নামে পরিচিত। এটি পরিণত মানুষ ও অন্যান্য প্রজাতিতে দেখা যায়। টাকের পরিমাণ ও বিস্তৃতি অনেক বেশি হতে পারে এবং এক্ষেত্রে নারী ও পুরুষের মধ্যে ভিন্নতা দেখা যায়। মাথা বা মুখের কিছু অংশের চুল পড়ে যাওয়াকে ‘অ্যালোপেসিয়া এরিয়েটা’ বলে।

এলোপেসিয়া (Alopecia) ৩ ধরনের:
১। এলোপেসিয়া এরিয়েটা
২। এলোপেসিয়া অ্যান্ড্রোজেনিটিকা
৩। এলোপেসিয়া টোটালিস

বাংলাদেশের ‘চমক অয়েল রিসার্চ’ নামক একটি গবেষণা প্রতিষ্ঠান দাবি করেছে মাত্র ২০ দিনে এলোপেসিয়া বা টাক আক্রান্ত স্থানে চুল গজাবে তাদের আবিষ্কৃত একটি তেলে। তাদের দাবি আট বছরের ক্লিলিনিক্যাল ট্রায়ালে প্রমাণিত ‘চমক গোল্ডেন বাল্ড অয়েল’ টানা ২০ দিন ব্যবহারে এলোপেসিয়া আক্রান্ত স্থানে দ্রুত চুল গজায়। আক্রান্ত স্থান স্বাভাবিক রূপে ফিরে আসে এবং ঐ চুল স্থায়ী ঘন কালো ও লম্বা হয়। টাকের দাগ বা কোন আলামতই সেখানে আর থাকেনা। পুরুষ মহিলা যেকোনো বয়সী মানুষের উপর এটি সমান কার্যকর।

চমক অয়েল রিসার্চের গবেষকগণ দাবি করেন, তাদের এই তেল মূল্যবান ভেষজ ও প্রাণীজ উপাদান থেকে তৈরি। এর উপাদান হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে জাফরান, আমন্ড অয়েল, টি ট্রি অয়েল, ক্যাস্টর অয়েল, সানফ্লাওয়ার অয়েল, ফিলাজিক ফিশ অয়েল এসেনশিয়াল অয়েল ও কোকোনাট অয়েল।

টাক (ইংরেজি: Baldness) বলতে চুলের অভাবকে বুঝায়, বিশেষ করে মাথার চুল। মাথার চুল ক্রমাগত হালকা হয়ে যাওয়ার মাধ্যমে সাধারণত টাক হওয়া প্রকাশ পায়। অনেক বিজ্ঞানী পুরো মাথার চুল পড়ে যাওয়াকে অ্যালোপেসিয়া টোটালিসও বলে থাকে। চুল পড়ে যাওয়ার আরো একটি মারাত্মক প্রকাশ হচ্ছে অ্যালোপেসিয়া ইউনিভার্সালিস। এক্ষেত্রে মাথাসহ সমস্ত শরীরের লোম ঝরে যায়। দীর্ঘদিন চুল ঝরে মাথার তালু খালি হওয়াকে অনেকে আবার ’নাশা’ বলে থাকেন। এই নাশা বা বাল্ডনেসে চুল গজাবে ‘চমক গোল্ডেন বাল্ড অয়েল’ মাত্র টানা ৯০ দিন ব্যবহারে। এই তেল ব্যবহারে প্রথম দিন থেকে চুল ঝরা হবে বন্ধ। গবেষকরা বলেন, এ ছাড়াও এই তেল সুস্থ চুলে সপ্তাহে ১দিন ব্যবহারে চুল থাকবে ঘন কালো লম্বা ও খুশকিমুক্ত।

চুল পড়ার চিকিৎসার জন্য এখন মাত্র দুটি ঔষধ বিশ্বে প্রচলিত আছে। একটি হচ্ছে মিনোক্সিডিল – যা পুরুষ ও মহিলা সবাই ব্যবহার করতে পারেন। আর অন্যটি হচ্ছে ফিনাস্টেরাইড – যা শুধু পুরুষের জন্য। তবে এ দুটি ঔষধের প্রতিটিরই কিছু না কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে এবং সবার ক্ষেত্রে এগুলো সমান কার্যকর হয় না। এসব স্প্রে একবার ব্যবহার করা হলে ভবিষ্যতে আর চুল গজানোর সম্ভাবনা থাকেনা।

তাই টাকের সমস্যায় আক্রান্তরা প্রায়ই চুল প্রতিস্থাপনের মতো সার্জিক্যাল পন্থার আশ্রয় নেন। যা অনেক ব্যয়বহুল ও কষ্টসাধ্য।
তেলটির বাণিজ্যিক নাম ’চমক গোল্ডেন বাল্ড অয়েল’। এই তেলটি বাজারজাত করছে ’চমক অয়েল রিসার্চ’ নামে সরকার অনুমোদিত একটি কোম্পানি। কষ্টসাধ্য ও ব্যয়বহুল হওয়ায় সীমিত আকারে এই তেল উৎপাদন করছে কোম্পানিটি। গবেষকদের দাবি তেলটি সম্পূর্ণ পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া মুক্ত ও শতভাগ ন্যাচারাল। চমক অয়েল রিসার্চের  ’চমক গোল্ডেন বাল্ড অয়েল’ তেলটি আপাতত কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে বিক্রি করা হচ্ছে।

পাঠক কুরিয়ারে পণ্যটি পেতে ০১৮১৮-৮৪৯৫১৯ নাম্বারে কল করতে পারেন।